স্বেচ্ছাসেবক দল থেকে পদত্যাগের মিছিল থামছেই না

সিলেট স্বেচ্ছাসেবক দলে ক্ষোভের আগুন কিছুতেই নিভছে না। বিএনপির এই অঙ্গসংগঠনটির সিলেট জেলা ও মহানগর শাখার কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে ক্ষোভ চরম আকার ধারণ করেছে। পদত্যাগের ঘোষণা দিচ্ছেন একের পর এক নেতা।

শুক্রবার সিলেট মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের বিভিন্ন ওয়ার্ডের বেশ কয়েকজন নেতা সংবাদ সম্মেলন করে দল থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দেন।

নগরীর মিরাবাজারের বিকেল ৫টার দিকে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ২০ নং ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক রায়হান বক্স রাকু।

যথারীতি দলে মূল্যায়িত না হওয়া, অযোগ্যদের কমিটিতে ঠাঁই দেওয়ার অভিযো্গ এনে পদত্যাগের কথা বলেন তিনি।

এসময় পদত্যাগের ঘোষণা দেন- ২১ নং ওয়ার্ডের আহবায়ক কাউন্সিলর আব্দুর রকিব তুহিন, ৬ নং ওয়ার্ডের আহবায়ক আব্দুল হান্নান, ১৯ নং ওয়ার্ডের মাসুক গাজী, ১৭ নং ওয়ার্ডের আহবায়ক বিলাল আহমদ খান, ১০ ওয়ার্ডের মিজানুর রহমান, ১১ নং ওয়ার্ডের সেলিম আহমদ, ১০ ওয়ার্ডের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক শামীম আহমদ খান, ২০ ওয়ার্ডের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক আকবর হোসেন কয়ছর, ৩ নং ওয়ার্ডের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক মামুন আহমদ, ২৩ নং ওয়ার্ডের দেলোয়ার হোসেন, ২০ ওয়ার্ডের আহবায়ক ফারুক হোসেন, ২১ নং ওয়ার্ডের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক মস্তফা কামাল ফরহাদ, শাহজান আহমদ প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, সিলেট জেলা ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক কমিটি গত ১৭ আগস্ট অনুমোদন দেয় দলটির কেন্দ্রীয় সভাপতি-সম্পাদক। কমিটিতে জেলা শাখার আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন আব্দুল আহাদ খান জামাল ও সদস্যসচিব হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন সাবেক ছাত্রনেতা দেওয়ান জাকির হোসেন খান।

মহানগর শাখার আহ্বায়ক হিসেবে আব্দুল ওয়াহিদ সুহেল ও সদস্যসচিব হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন আজিজুল হোসেন আজিজ।

নিজেদের বলয়ের নেতারা কাঙ্ক্ষিত পদ না পাওয়ায় এই কমিটি নিয়ে ক্ষুব্ধ হন জেলা বিএনপির একাধিক শীর্ষ নেতা। কমিটি ঘোষণার পরদিনই বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-স্বেচ্ছাসেবকবিষয়ক সম্পাদক সামসুজ্জামান জামান পদত্যাগের ঘোষণা দেন। দলের মহাসচিব বরাবর পদত্যাগপত্রও ওই দিন পাঠান তিনি।

পদত্যাগপত্রে তিনি অভিযোগ করেন, সহ-স্বেচ্ছাসেবকবিষয়ক সম্পাদক হওয়ার পরও তার সঙ্গে আলোচনা না করেই জেলা ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটি অনুমোদন করা হয়। তাতে ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতা-কর্মীদের মূল্যায়ন করা হয়নি।

জামানের পদত্যাগ নিয়ে আলোচনার মধ্যেই নবগঠিত জেলা ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটি থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দেন ১১ নেতা।এর দুই দিন পর পদত্যাগ করেন বিএনপির সহযোগী সংগঠন তাঁতী দলের তিন নেতা। এরপর গত ২৫ আগস্ট স্বেচ্ছাসেবক দলের শতাধিক নেতাকর্মী একসাথে পদত্যাগের ঘোষণা দেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.