আবু সুুফিয়ান আজম, পরিছন্নতার এক প্রতীক

হেলাল আহমদ চৌধুরী:

বঙ্গবন্ধুর আদর্শ হৃদয়ে ধারণ করে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে পড়ালেখার পাশাপাশি যোগ দেন দেশের প্রথম ছাত্রসংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগে । বাংলাদেশ ছাত্রলীগে যোগদানের মধ্য দিয়ে রাজনীতিতে তাঁর আত্মপ্রকাশ হয়। তৎকালীণ সকল আন্দেলন সংগ্রামে রাজপথে সরব অবস্থান ছিল তাঁর। এর পর আর তাকে পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। পালে হাওয়া লাগতে শুরু করে। বলছিলাম গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের অন্যতম নেতা স্কুল শিক্ষক আমুড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান দলীয় পদপ্রার্থী আবু- সুফিয়ান আজম ভাইর কথা। শিক্ষাজীবনের শুরু। তার পর থেকে রাজনীতির মাঠে তার সরব অবস্থান পরিচ্ছন্ন রাজনীতির জীবন্ত উদাহরন হয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনে পরিচিতি লাভ করেন সাবেক এই ছাত্রনেতা। বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার ঘোষনা মোতাবেক ভিশন ২০২১ ও ২০৪১ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে নেত্রীর দিক-নির্দেশনায় ছুটে চলা এ তরুন রাজনীতিবীদ আবু সুফিয়ান আজম বলেন, আমার আমৃত্যু নিজেকে মানুষের সেবায়, জনগণের সেবায় নিয়োজিত রাখবো। আমার নেত্রী আমার অহংকার। আমি জাতির পিতার আদর্শ বাস্তবায়নের জন্য প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কাজ করে যাবো। এদেশকে একটি সুখী, সমৃদ্ধশালী, অসাম্প্রদায়িক একটি উন্নত দেশ বিনির্মানে দলের একজন নিবেদিত কর্মী হিসেবে আজীবন কাজ করে যাবো। এক আলাপচারিতায় আজম জানান, দল ক্ষমতায় টানা তৃতীয় মেয়াদে। কিন্ত আমি কখনো দলীয় ক্ষমতার অপব্যবহার করিনি। আমি কখনোই রাজনীতির মাঠে গ্রুপিং-এ বিশ্বাসী নই। আমার ব্যক্তিগত কোনও গ্রুপ নেই। আমি এটা বিশ্বাস করি আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের কর্মী। আমি মাদক ও সন্ত্রাস নির্মূলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর জিরো টলারেন্স নীতিতে বিশ্বাসী এবং তা বাস্তবায়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছি অনবরত। আমাকে আজঅব্দি কোন অপরাজনীতি ও অপসংস্কৃতি স্পর্শ করতে পারেনি। আমি নিজেকে দল-মতের উর্ধ্বে উঠে জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে কাজ করেছি সকলের জন্য এবং তা আগামীতেও অব্যাহত থাকবে। তিনি বলেন, বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসের প্রানঘাতী আঘাতে যখন পুরো পৃথিবী বিপর্যস্ত তখনো আমি আমার সাধ্যানুযায়ী ও বিত্তবানদের সহযোগীতায় সাধারন মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করেছি।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.