সাপ্তাহিক সুরমা টাইমস এর পক্ষ থেকে সবাইকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা

বাপ্পী চৌধুরীঃঃ

‘রমজানের ওই রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ।’ আনন্দের সওগাত নিয়ে আসা পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে সাপ্তাহিক সুরমা টাইমস-এর সকল পাঠক,লেখক, গ্রাহক, হকার, এজেন্ট, বিজ্ঞাপনদাতা ও শুভানুধ্যায়ীদের জানাই পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা। পবিত্র রমজানে দীর্ঘ এক মাসের সিয়াম সাধনার পর আনন্দের বার্তা নিয়ে এলো পবিত্র ঈদুল ফিতর। মুসলমানদের প্রধান দুটি ধর্মীয় উৎসবের অন্যতম এই ঈদুল ফিতর। প্রতিবছর ছেলে-বুড়ো, নারী-পুরুষ, ধনী-দরিদ্র-নির্বিশেষে সবাই শরিক হয় এই আনন্দ উৎসবে। যে যার সাধ্যমতো এই দিনটি আনন্দঘন পরিবেশে উদযাপন করে থাকে। হিংসা, বিদ্বেষ, হানাহানি ভুলে মানুষে মানুষে আনন্দের বন্যা বয়ে যায়। ঈদের আনন্দ সবার সঙ্গে ভাগ করে নিতে পথের বিড়ম্বনা অগ্রাহ্য করে সবাই ছুটে যায় পরিবার, আত্মীয়-স্বজনের কাছে।ঈদ অঙ্গীকারেরও উৎসব। আত্মিক পরিশুদ্ধির ফলে দূর হয়ে যাবে সব সংকীর্ণতা ও ভেদাভেদ। অন্যায়, অবিচার, ঘৃণা, বিদ্বেষ, হিংসা, হানাহানি-মানুষের সব নেতিবাচক প্রবণতার রাশ টেনে ধরবে ঈদ।

ঈদ যে আনন্দের বার্তা বয়ে এনেছে, তার মর্মমূলে আছে শান্তি ও ভালোবাসা। পরস্পরের বন্ধুত্বপূর্ণ প্রতিবেশী হয়ে ওঠার এক মহান উপলক্ষ ঈদ। ঈদ আগমনী সুরে বেজে চলেছে মানুষে মানুষে মিলনের এই আকুতি।তাই মুসলমান সম্প্রদায়ের মানুষ সব ধর্ম-বর্ণ-গোত্রের প্রতিবেশীদের নিয়ে তাদের সবচেয়ে বড় উৎসব বরণের জন্য প্রস্তুত।ঈদ উৎসব উদযাপনের জন্য কর্মজীবী মানুষ শহর থেকে পরিবার-পরিজনসহ গ্রামের বাড়ি যান। নাড়ির টানে বাড়ি ফিরে পরিবারের সবাই মিলে আনন্দ উল্লাস করে ঈদ উদযাপন করেন। ঈদ শেষে সবাই আবার ফিরে নিজ কর্মস্থলে। তাই সবার জীবনে ঈদ নিয়ে আসুক সমৃদ্ধি, ভালোবাসা ও প্রেম। সবার চলার পথ হোক নিরাপদ। সবাইকে ঈদ মোবারক।এবার করোনাকালে যদিও ঈদের থাকবে না তেমন কোনো আনুষ্ঠানিকতা,তবে অন্যান্য বারের চেয়ে গরীব-দুখির মধ্যে সামর্থবানদের যাকাত-ফিতরা বন্টনের কর্মসূচি বেশি থাকাসহ নানা কারণে এবারের ঈদ ভিন্নমাত্রা পাবে।
কিন্তু এবার পরিস্থিতি ভিন্ন। করোনাভাইরাস নামের মহামারি এবারের ঈদের আনন্দ ম্লান করে দিয়েছে। গণপরিবহন বন্ধ। এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যাতায়াত নিষেধ। আর সেই কারণে শুধু আনন্দ নয়, রোগ প্রতিরোধের নতুন শপথও করতে হবে এবারের ঈদে।

দেশব্যাপী লকডাউন দেওয়া হলেও প্রায় কেউই তা মানছে না। ঈদের আগে দোকান, শপিং মল, মার্কেট খুলে দেওয়া হয়েছে। কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মানার শর্ত দেওয়া হলেও তা যথাযথভাবে মানা হচ্ছে না। মার্কেট, শপিং মলগুলোতে দেখা যাচ্ছে উপচে পড়া ভিড়। সামাজিক দূরত্ব মানা তো দূরের কথা, অনেকে মুখে মাস্কও পরছে না। এর মধ্যে শুরু হয়েছে ঈদে বাড়ি ফেরা। দূরপাল্লার বাস বন্ধ রাখা হয়েছে। ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে; এমনকি ফেরিঘাটে বিজিবি মোতায়েন করেও বাড়ি ফেরা যাত্রীদের আটকানো যাচ্ছে না। তারা ফেরিঘাটের আশপাশের এলাকা থেকে ঝুঁকি নিয়ে ছোট ছোট নৌযানে নদী পার হয়ে নানা ধরনের যানবাহনে গাদাগাদি করে বাড়ি ফিরছে। এসব কারণে অনেক বিশেষজ্ঞ আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন, ঈদের পরপরই করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ব্যাপক হতে পারে। অন্যদিকে মহামারির ধাক্কা আমাদের অর্থনীতিতেও বড় ধরনের আঘাত করেছে। মহামারির কারণে দারিদ্র্যসীমার নিচে চলে যাওয়া মানুষের মধ্যে অনেকে ঘুরে দাঁড়াতে পারলেও দুই কোটি ৪৫ লাখ মানুষ এখনো দরিদ্রই থেকে গেছে। করোনাভাইরাস মহামারিতে দেশের প্রান্তিক পরিবারগুলোর ঋণের বোঝা বেড়েছে।বৈশ্বিক এই মহামারিতে ঈদের আনন্দও যেন থমকে আছে। আমরা বিশ্বাস রাখি, এ মানবিক সংকট মোকাবেলায় এবারের ঈদ হবে একে অন্যের পাশে দাঁড়ানোর।

ঈদুল ফিতর একাধারে আনন্দ-উৎসব ও ইবাদত। এই আনন্দ আল্লাহর অশেষ রহমত ও ক্ষমাপ্রাপ্তির, জাহান্নাম থেকে মুক্তির। এই আনন্দে নেই কোনো পাপ-পঙ্কিলতা। এ আনন্দে রয়েছে শুধুই সওয়াব ও পুণ্য। ঈদ মুসলমানদের জন্য শুধু একটি ধর্মীয় উৎসবই নয়, সম্প্রীতি-সৌভ্রাতৃত্ব শেখার একটি গুরুত্বপূর্ণ উপলক্ষও। এই উৎসবের মাধ্যমে প্রত্যেক মুসলমান একে অন্যের আরো কাছাকাছি আসে। শুধু মুসলমান নয়, অন্যান্য ধর্মের মানুষের সঙ্গেও আনন্দ ভাগাভাগি করে নেয়। পবিত্র রমজান আমাদের চিত্তশুদ্ধির যে শিক্ষা দিয়েছে, ঈদুল ফিতর হচ্ছে সেই শিক্ষা কাজে লাগানোর দিন।

বর্তমান এই করোনা মহামারিতে মানবজাতির ক্রান্তিলগ্নে আল্লাহর কাছে ক্ষমা ও দোয়া চাওয়া ছাড়া আমাদের আর কিছুই করার নেই। আল্লাহতালা সবাইকে এ মহামারী থেকে মুক্তি দান করুন এটাই কামনা করি।

করোনা সংকটেও সবার ঘরে পৌঁছে যাক ঈদের সওগাত। করোনার ক্ষতি কাটিয়ে আমাদের ঘরে ঘরে ফিরে আসুক শান্তি ও সমৃদ্ধি। বিস্তৃত হোক সম্প্রীতি ও সৌহার্দ। পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে আনন্দময় ও নিরাপদ হোক সবার জীবন।

পবিত্র ঈদ উল ফিতর উপলক্ষে সাপ্তাহিক সুরমা টাইমস এর সকল পাঠক, সংবাদকর্মী, প্রতিনিধিবৃন্দ, বিজ্ঞাপনদাতা , এজেন্ট এবং শুভান্যুধায়ীদের পবিত্র ঈদ উল ফিতরের আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন সাপ্তাহিক সুরমা টাইমস এর সম্পাদক ও প্রকাশক হাবিবুর রহমান তাফাদার ।।সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা। ঈদ মোবারক।

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.