Sylhet Express

জামাই সুমন ও আলীম উদ্দিনের ‘বোমা’মেশিনে মলিন জাফলংয়ের সৌন্দর্য,

0 ১,০৮২

অনুসন্ধানী প্রতিবেদনঃ সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার জাফলং ব্রীজ সংলগ্ন এলাকা পিয়াইন নদী থেকে চলছে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন। শুধু কি তাই বালু উত্তোলন করতে আসা সুনামগঞ্জ সহ বিভিন্ন স্থানের নৌকা সমূহ থেকে চলছে ব্যাপক চাঁদাবাজি। আর এসব চাঁদাবাজির নেপথ্যে রয়েছে নয়া বস্তি গ্রামের একটি সন্ত্রসী পরিবার। সন্ত্রাসী পরিবারের সদস্য ও তাদের বাহিনী দ্বারা চলছে বেপরোয় চাঁদাজি। সিলেট ৪ আসেনর মাননীয় সংসদ সদস্য গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় মন্ত্রী জননেতা ইমরান আহমদ গত বছর বলেছিলেন নদীতে কোন বোমা মেশিন চলতে দেয়া হবে না,মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় এর ছেড়ে দেয়া চেলেঞ্জের তোয়াক্কা না করে গোয়াইনঘাট থানার সিনিওর দুই কর্মকর্তার যোগসাজশে জামাই সুমনের নেতৃত্বে বোমা মেশিনে পাথর উত্তোলন করা হচ্ছে।যার ফলে পরিবেশ বিপর্যয় সহ নানা প্রাকৃতিক ক্ষতির সম্মুখীন হবে গোয়াইনঘাট বাসী।

বিশ্ব মহামারী পরিস্থিতিতে যখন সরকার স্বাস্থ্যবিদী মেনে চলাচলের জন্য লকডাউন দিয়ে জনসাধারণের বিচরণ সামাল দিতে হিমসিম খাচ্ছে ঠিক তখন এই অবৈধ ভালু চোরাকারবারি মহা উৎসবে ভালু উত্তোলন করে যাচ্ছে।
নির্বিচারে বালু লুটের ফলে একদিকে যেমন বিশাল সম্পদ বালুর পরিমান নদী শেষ হ্রাস পাচ্ছে, ঠিক তেমনি সরকারের ৩৫ কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত মেগা উন্নয়ন প্রকল্প জাফলং ব্রীজ পিয়াইন নদীর গর্ভে ধ্বশে পড়ার উপক্রম হয়েছে। প্রশাসন বিষয়টি ওয়াকিবহাল থাকলেও সন্ত্রাসী ওই পরিবারের সাথে থানা প্রশাসন সহ তাদের শেল্টার দাতাদের দহরম মহরম থাকায় তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহন করা হচ্ছেনা।

খোঁজ নিয়ে জানাজায়,তাদের বিরুদ্ধে গোয়াইনঘাট থানায় পাথর শ্রমিক হত্যা, চাঁদাবাজি, জায়গা দখল, হত্যা, ছিনতাই সহ বিভিন্ন মামলা রয়েছে। কিন্তু আলীম উদ্দিনের সন্ত্রাসী বাহিনীর বিরুদ্ধে এলাকার কোন শান্তিকামী মানুষজন প্রতিবাদ করার সাহস পায়না। কেউ প্রতিবাদ করলে মারপিট, নির্যাতন মামলা হামলার ভয় দেখানো হয়। যার ফলে সে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে ওই চক্র। এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা গেছে,জামিনে বের হয়ে রাতের আধারে পাথর উত্তোলন এবং দিনের বেলা চাঁদাবাজি এছাড়া তার অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন নয়াবস্তি গ্রামের একটি নিরীহ পরিবার।আলীম উদ্দিন ও তার বাহিনীর নিপীড়নে বর্তমানে আতঙ্কে ভুগছে এলাকার মানুষ। পাথর খেকো আলীম উদ্দিন,আলাউদ্দিন,বিশ্বনাথী ফয়জুল ও জামাই সুমনের নেতৃত্বে এই অবৈধ ভালু উত্তোলন ও বোমা মেশিনে পাথর উত্তোলন করা হচ্ছে।

প্রশাসনের উচ্চ পর্যায়ের হস্তক্ষেপ ছাড়া কোনো অবস্থায় এই পরিস্থিতি সামাল দেওয়া সম্ভব না। সময় থাকতে প্রশাসনের দ্রুত হস্থক্ষেপ কামনা করছে স্হানীয় জনগণ।এ ব্যাপারে আলীম উদ্দিন ও জামাই সুমনের মুঠোফনে একাধিকবার কল দেয়া হলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায় এবং আলীম উদ্দিন ফন রিসিব করেননি ।

মন্তব্য
Loading...