Sylhet Express

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

0 ২৭৫

গত ১৪ই জানুয়ারি ২০২০ ইংরেজি তারিখে সিলেটের বহুল প্রচলিত দৈনিক রয়েল সিলেট পত্রিকার অনুসন্ধানী প্রতিবেদন পর্ব-১ গোয়াইনঘাটের অপরাধ সম্রাজ্ঞের মুকুটহীন সম্রাট কে এই চা কামাল ও গত ১৭ই জানুয়ারি ২০২০ ইংরেজি তারিখে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন পর্ব-২ চা বিক্রেতা থেকে কোটিপতি কে এই কামাল মেম্বার শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদগুলো আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। ওই সংবাদগুলো সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট, কল্প কাহিনী ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত।

একটি সংঘবদ্ধ দুষ্টচক্র নিজেদের মাদক ব্যবসা, সরকারের রাজ্যস্ব ফাঁকি দিয়ে অবৈধ ভাবে ভারতীয় গরু ব্যবসা, চাঁদাবাজী, সন্ত্রাসী, দুর্নীতি সহ সকল অপকর্ম ঢাকতেই ঐ প্রভাবশালী অপরাধ চক্র আমার বিরুদ্ধে ভুয়াও কল্প কাহিনী তথ্য দিয়ে জনসাধারণকে বিভ্রান্ত করতে ও আমার ভাবমূর্তি নষ্ট করার কু-অভিপ্রায়ে মূলত এই মিথ্যা সংবাদগুলো প্রকাশ করিয়েছে। আমি এই মিথ্যা ও ঘৃণ্য সংবাদগুলোর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।
প্রকৃত ঘটনা হল, আমি সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার ১নং রুস্তমপুর ইউ/পি’র অন্তর্গত খলামাধব গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত তালেব আলীর ছেলে মোঃ কামাল হোসেন (ইউ/পি সদস্য)। আমি বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ গোয়াইনঘাট উপজেলা কমিটির সদস্য ও আহবায়ক ১নং রুস্তমপুর ইউনিয়ন যুবলীগ। সিনিয়র সহ সভাপতি উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড এবং উপজেলা বঙ্গবীর এমএজি ওসমানী উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য সহ ১নং রুস্তমপুর ইউনিয়ন পরিষদ ৭নং ওয়ার্ডের সদস্য হওয়ায় আমার পেশাগত দায়িত্ব ও কর্তব্য পালন করতে গিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে সোনার বাংলা ও বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা মাদার অব হিউমিনিটি দেশনেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে রুস্তমপুর ইউ/পির চাঁদাবাজী, সন্ত্রাসী, চোরকারবারী ও মাদক ব্যবসা সহ সকল অপরাধ নির্মূলে স্থানীয় প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করি। এমনকি অপরাধীদের নামের তালিকা তৈরী করে প্রশাসনের নিকট প্রদান করি। এতে অপরাধ চক্রের গডফাদারদের থলের বিড়াল বেরিয়ে আসার ভয়ে তাদের গাত্রদাহ হচ্ছে। বিধায় ওই অপরাধ চক্রের গডফাদাররাই আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে।
আমি বিছনাকান্দি সীমান্তে অবৈধ গরু ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদা নিচ্ছি, এমন কোন প্রমাণ কেউ দিতে পারবে না। এমন ঘটনা হলে সবার পূর্বে স্থানীয় প্রশাসন জানার কথা। আমি গরু ব্যবসায়ীদের কারো কাছ থেকে চাঁদা নিলে তারা আমার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিত। কিন্তু কেউ তো এমন অভিযোগ আমার বিরুদ্ধে করেনি।

আর আমি জিরো থেকে হিরো হয়েছি। অর্থাৎ অবৈধ ভাবে সম্পদের পাহাড় গড়েছি বা কোটি টাকার মালিক হয়েছি। আমি অবৈধ ভাবে সম্পদের পাহাড় গড়লে বা কোটি টাকার মালিক হলে আইন-শৃংখলা বাহিনী আমার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার কথা। অথচ আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের কোন তথ্য উপাত্ত বা সুনির্দিষ্ট প্রমাণ না থাকার পরও আমি একজন সহজ সরল নিরীহ জন প্রতিনিধি, আমার বিরুদ্ধে একের পর এক মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করা হচ্ছে। এসমস্ত ভিত্তিহীন সংবাদের আমি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই ।আমি যথাযথ কতৃপক্ষকে বলতে চাই। আপনারা প্রয়োজনে সরজমিনে এসে তদন্ত করে দেখুন আমার এলাকার জনগণের সাথে কথাবলে জানুন,আমি আদৌ কোন অপকর্মের সাথে জড়িত আছি কি-না । আপনারা জাতির বিবেক ,আপনারা কারো মিথ্যাতত্ত্বে বিভ্রান্ত না হয়ে আসল চোরাকারবারী, ভূমিখেকো, দখলবাঁজ, মামলাবাঁজদের মুখোশউন্মোচনের মধ্যমে প্রশাষন ও নীরিহ জনসাধারণকে সহায়তা করুন । — প্রেস বিজ্ঞপ্তি ।

মন্তব্য
Loading...