‘বাংলাদেশি পরিচয়ে ২ লাখ রোহিঙ্গা বিদেশে’

অন্তত দুই লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশি পরিচয়ে বিভিন্ন দেশে পাড়ি জমিয়েছেন বলে জানান প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি।

তারা (রোহিঙ্গা) বাংলাদেশী পাসপোর্ট ব্যবহার করে বিদেশে কাজও করছে। টাকা পাঠাচ্ছে মায়ানমারে। এতে করে প্রকৃত বাংলাদেশিরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন বলেও জানিয়েছেন মন্ত্রী।

শনিবার (২৮ এপ্রিল) রাজধানীর একটি হোটেলে ‘সেন্টার ফর নন-রেসিডেন্ট বাংলাদেশিস’ আয়োজিত ‘এসো গড়ি মাতৃভূমি’ শীর্ষক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বিভিন্ন দেশ সফরের অভিজ্ঞতায় প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী বলেন, বিদেশ গেলে অনেকে বাংলাদেশি পরিচয়ে দেখা করতে আসে। বাড়ি কোথায় জিজ্ঞেস করলে জানা যায়, তারা রোহিঙ্গা।

বাংলাদেশিরা বিদেশ যেতে হয়রানি, প্রতারণার শিকার হন। জনশক্তি রপ্তানিখাত ‘সিন্ডিকেটের’ নিয়ন্ত্রণে এমন অভিযোগও রয়েছে। নুরুল ইসলাম বিএসসিও স্বীকার করেন, কিছু ক্ষেত্রে এখনো সমস্যা রয়ে গেছে। মন্ত্রী বলেন, ‘মালয়েশিয়ায় শ্রমিক পাঠাতে সিন্ডিকেট হয়েছে, তবে বাংলাদেশে নয়। বাংলাদেশ কর্মী পাঠানো বন্ধ করলে, কেউ যেতে পারবে না, সাধারণ শ্রমিকরা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন না।’

মন্ত্রী দাবি করেন, বাংলাদেশে কোন ‘সিন্ডিকেট’ নেই।

এছাড়া মন্ত্রী বলেন, দেশে বৈধপথে রেমিট্যান্স বাড়াতে প্রণোদনা দেয়ার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে প্রণোদনার একটি প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হয়েছে। অর্থমন্ত্রী রাজি থাকলে এ প্রণোদনা চালু হবে। ফলে বৈধপথে প্রবাসী আয় বাড়বে।

অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন সেন্টার ফর এনআরবি’র চেয়ারম্যান এমএস শাকিল চৌধুরী। বক্তৃতা করেন সাবেক মন্ত্রী এসকে শহিদুল ইসলাম, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা হোসেইন জিল্লুর রহমান, ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই’র সভাপতি সফিউল আলম মহিউদ্দিন), নির্বাচন কমিশন সচিব হেলাল উদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর অবু হেনা রেজা হাসান প্রমুখ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.