বিয়ানীবাজারে নিহত ব্যবসায়ীর দাফন সম্পন্ন, দোষীদের গ্রেফতারে শিক্ষামন্ত্রীর নির্দেশ

0 ৩৪৪

বিয়ানীবাজার পৌরশহরের জামান প্লাজার ব্যবসায়ী ও আবরণী বস্ত্র বিতানের মালিক সহিব উদ্দিন সৈবনের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। রাত ৭টা ৪৫ মিনিটে পিএইচজি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মরহুমের প্রথম জানাজার পর নিজ বাড়ি বড়লেখা উপজেলার ইটাউরী গ্রামে রাত সাড়ে ৯ টায় দ্বিতীয় জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে সমাহিত করা হয়। মরহুমের জানাজায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদসহ বিয়ানীবাজার ও বড়লেখা উপজেলার হাজারো শোকার্ত মানুষ অংশ নেন।

এদিকে মরহুমের জানাজা পূর্বে বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ব্যবসায়ী সৈবন নিহতের ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করে দ্রুত সময়ের মধ্যে গ্রেফতারের জন্য পুলিশ প্রশাসনকে নিদের্শ দেন। নিহতের শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা এবং নিহত ব্যবসায়ীর আত্মার মাগফেরাত কামনা করে তিনি বলেন ‘ব্যবসায়ী সৈবন উদ্দিনের এমন মৃত্যু অনাকাঙ্খিত। এরকম মৃত্যু কোনভাবে কাম্য নয়। তিনি ঢাকায় গিয়ে আইজিপি’র সাথে আলাপ করবেন- যেন দ্রুত সময়ের মধ্যে অপরাধীদের সনাক্ত করে আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা করা হয়।’

উল্লেখ্য, আজ শুক্রবার ভোরে বিয়ানীবাজার-সিলেট সড়কের চারখাই গাছতলা নামক এলাকা থেকে গলাকাটা অবস্থায় বিয়ানীবাজার পৌরশহরের জামান প্লাজার ব্যবসায়ী আবরণী বস্ত্র বিতানের মালিক সহিব উদ্দিন সৈবনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তবে এঘটনায় কারা জড়িত তার কোন ক্লু পাওয়া যায় নি। এমনকি নিহতের সন্তান ও পরিবারের লোকজনও এবিষয়ে কিছু বলতে পারছেন না।

এবিষয়ে নিহত ব্যবসায়ী সৈবনের পুত্র আবির জানান, বৃহস্পতিবার অজ্ঞাত একটি ফোন পেয়ে বিকেলের দিকে ব্যবসায়িক কাজের কথা বলে তার পিতা সিলেটের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন। সন্ধ্যার দিকে সৈবন তার স্ত্রীর সাথে শেষ কথা বলেন।

তারপর আর কথা হয়নি জানিয়ে তিনি জানান, সকালে ফোনের মাধ্যমে জানতে পারি বাবার রক্তাক্ত লাশ চারখাইয়ের গাছতলায় পড়ে আছে। কি কারণে এই হত্যাকান্ড তা তাৎক্ষনিক ভাবে জানাতে পারেননি তিনি। ব্যবসায়ী সৈবন নিহতের ঘটনায় আগামীকাল শনিবার বিয়ানীবাজারের জামান প্লাজা পূর্ণ দিন বন্ধ থাকবে। এছাড়াও অপর তিন বিপনী বিতান বন্ধ থাকবে অর্ধ দিবস।

নিহত সহিব উদ্দিন সৈবন আহমদ বড়লেখা উপজেলার ইটাউরী গ্রামের মকবুল আলীর ছেলে। তিনি বর্তমানে বিয়ানীবাজার পৌরশহরের দাসগ্রাম এলাকায় পরিবার-পরিজন নিয়ে স্থায়ীভাবে বসবাস করেন। এখানকার জামান প্লাজায় আবরণী ফ্যাশন নামক দু’টি কাপড়ের দোকান রয়েছে তার। দীর্ঘ কয়েক বছর থেকে তিনি কাপড়ের ব্যবসা করছেন। তিনি তিন পুত্র সন্তানের জনক।

সার্বিক বিষয়ে বিয়ানীবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহজালাল মুন্সি জানান, বিষয়টি খুবই স্পর্শকাতর। আমরা ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চালাচ্ছি। আসামী যেই হোক তাকে অবশ্যই বিচারের আওতায় আনা হবে।

মন্তব্য
Loading...