বিয়ানীবাজার ছাত্রলীগের কমিটি না হলে আ. লীগের অনুষ্ঠান বয়কটের হুশিয়ারী

0 ১২৩

দীর্ঘ এক যুগ ধরে বিয়ানীবাজারে নেই ছাত্রলীগের কোন কমিটি। যার ফলে উপজেলা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা রয়েছেন অভিভাবকহীন ও পরিচয়বিহীন ভাবেই। এনিয়ে বিয়ানীবাজার উপজেলা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা বারবার প্রকাশ্যে ক্ষোভও প্রকাশ করেছেন আওয়ামীলীগসহ দলের শীর্ষ নেতৃবৃন্দের কাছে।

গত বৎসর  বিয়ানীবাজার পৌরসভার নির্বাচনের প্রচারণার শেষ দিন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসেন বিয়ানীবাজার পৌরশহরের দক্ষিণবাজারে ও একটি কমিউনিটি সেন্টারে ছাত্রলীগের কর্মী সম্মেলনে অল্পদিনের মধ্যেই ছাত্রলীগের কমিটি করে দিবেন বলে ঘোষণা দিয়ে গেলেও কাজের কাজ কিছুই হয় নি। এক বৎসর পেরিয়ে গেছে কিন্তু কমিটি পায় নি বিয়ানীবাজার উপজেলা ছাত্রলীগ। যার ফলে ফুঁসে উঠেছে দলের সর্বস্থরের নেতাকর্মীরা। কমিটির দাবীতে ঐক্যবদ্ধ বিয়ানীবাজার উপজেলা ছাত্রলীগ।

আর এ দাবীতে বিয়ানীবাজার পৌরশহরে বৃহস্পতিবার বিক্ষোভ মিছিল শেষে পথসভায় ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণার দাবী জানিয়েছেন বিয়ানীবাজার উপজেলা, কলেজ ও পৌর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। বেলা ২টায়  বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজ ক্যাম্পাস থেকে ঐক্যবদ্ধ ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল পৌরশহর  প্রদক্ষিণ করে পোষ্ট অফিস মোড়ে এক পথসভায় সভায় মিলিত হয়। বিক্ষোভ মিছিলে বিয়ানীবাজার উপজেলা, সরকারি কলেজ ও পৌরসভা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। বিয়ানীবাজার উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা ইকবাল হোসেন তারেকের সভাপতিত্বে এবং উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা সিদ্দিকুর রহমানের পরিচালনায় এতে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা কাওছার আহমদ ও সাইদুল ইসলাম।

পথসভায় বক্তারা বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া আদর্শিক সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। বাংলাদেশ ছাত্রলীগ বিয়ানীবাজার উপজেলায় প্রতিষ্ঠার পর থেকে সকল আন্দোলন সংগ্রামে অগ্রণী ভুমিকা পালন করেছে। সহযোগীতা করেছে অভিভাবক সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ও যুবলীগকে এবং এখনো করে যাচ্ছে। যার কারণে মজবুত হয়েছে বঙ্গবন্ধু তনয়া জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাঁত। তারা বলেন, বিয়ানীবাজারে বিগত সময়ে অনেকবার ছাত্রলীগের উপজেলা, পৌর ও কলেজ শাখার কমিটি গঠন হলেও ২০০৩ সালের পর থেকে আর কোন কমিটি করে দেয়া হচ্ছে না। যার ফলে ক্রমশ জনপ্রিয়তা হারাতে বসেছে ছাত্রলীগ। ক্ষোভ আর দুঃখে ছাত্রলীগের অনেক নেতাকর্মী চলে যাচ্ছেন প্রবাসে।  এমনকি ছাত্রলীগের অনেক নেতাকর্মী আজো পরিচয়হীনভাবেই রয়ে গেছেন কেবল সাবেক ছাত্রনেতা পরিচয় নিয়ে। আমরা এ থেকে পরিত্রাণ চাই।

বক্তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, কিছু স্বার্থান্বেষী ব্যক্তির কারণে বিয়ানীবাজার ছাত্রলীগ আজ ধ্বংসের মুখে। অথচ দলের নীতিনির্ধারকরা আজ নিরব। বক্তারা হুশিয়ারী উচ্চারণ করে বলেন, অনতিবিলম্বে বিয়ানীবাজারে ছাত্রলীগের তিন ইউনিটের কমিটি ঘোষণা করা না হলে বিয়ানীবাজারে আওয়ামীলীগের সকল অনুষ্টান বয়কট করা হবে এবং দাবী মানা না হলে আরো কঠোর আন্দোলনে যাবে ছাত্রলীগ। বক্তারা অনতিবিলম্বে বিয়ানীবাজার উপজেলা, সরকারি কলেজ ও পৌরসভা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার দাবি জানান।

মন্তব্য
Loading...