কী করলে চেহারায় বয়সের ছাপ পড়ে না?

বার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয় ও লন্ডনের কিংস কলেজের এক দল গবেষক একটি গবেষণা করেন। এই গবেষণার বিষয়বস্তু ছিল সুস্থ ও তরুণ থাকার উপায় কী?

গবেষণায় তারা দেখেন যে সব মানুষ কম বয়সে শরীরচর্চা বা সাইকেল চালানোর মতো কোনো কাজ করেছেন তারা পরবর্তীকালে অন্যদের তুলনায় বেশ তরুণ আর সুস্থ। কারণ এই শরীরচর্চাই তাদের ‘এজিং প্রবলেম’কে কমিয়ে দিয়েছে। বা জরা আসতে দেয়নি।

এই গবেষণায় তারা ৫৫ থেকে ৭৯ বছর বয়সের ১২৫ জন সাইকেল চালাতে পারেন এমন ব্যক্তিকে বেছে নিয়েছিলেন। তার মধ্যে ৮৪ জন পুরুষ আর ৪১ জন নারী। পুরুষরা সাড়ে ছয় ঘণ্টায় ১০০ কিলোমিটার আর নারীরা সাড়ে পাঁচ ঘণ্টায় ৬০ কিলোমিটার সাইকেল চালাতে সক্ষম। তবে এই গবেষণা থেকে বাদ রাখা হয়েছিল যাদের উচ্চ রক্তচাপ আছে, ধূমপান করেন ও মদপান করেন এমন ব্যক্তিদের।

এই দলটিকে নানা রকম পরীক্ষা করে দেখা হয়। তাদের শারীরিক পরিস্থিতির সাথে তরুণ প্রজন্মের যারা শরীর চর্চা করেন না তাদের শারীরিক পরিস্থিতির তুলনা করা হয়। এতে ৫৫ থেকে ৮০ বছরের ৭৫ জন সুস্থ প্রবীণের সাথে ছিলেন ২০ থেকে ৩৬ বছরের ৫৫ জন তরুণও।

অধ্যাপক স্টিফেন হ্যারিজেট বলেন, সাইকেল চালকদের আলাদা করে শরীরচর্চা করতে হয় না। কারণ তারা স্বাস্থ্যবান হন। আসলে তারা স্বাস্থ্যবান হন কারণ তারা নিয়মিত সাইকেল চালানোর মতো একটা ব্যায়াম করেন।

এই গবেষণা থেকে গবেষকরা সিদ্ধান্তে আসেন, শরীরচর্চা আর সাইকেল চালানোর মতো পরিশ্রম সাধ্য কাজ যারা নিজেদের ব্যবহারিক জীবনে নিয়মিত করেন তাদের বয়স বাড়লেও শরীরে মেদ, মাংসের পরিমাণ বাড়তে দেয় না। শুধু তাই নয়, বাড়তে দেয় না কোলেস্ট্রেরল আর বয়সজনিত অন্যান্য সমস্যা বা জরাকেও। ধরে রাখে তারুণ্য আর সতেজ ঝরঝরে ভাব। বাড়ায় রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও। এই গবেষণাপত্রটি প্রকাশিত হয়েছে ‘এজিং সেল’ পত্রিকায়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.