‘রোগী মারার না বাঁচানোর ডাক্তার হচ্ছে তা দেখতে হবে’

0 ১০০

দেশের মেডিকেল কলেজগুলোতে মানসম্পন্ন শিক্ষা নিশ্চিত করার তাগিদ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, ‘রোগী মারার ডাক্তার হচ্ছে, নাকি রোগী বাঁচানোর ডাক্তার হচ্ছে, এটা একটু ভালো করে দেখতে হবে।’

বৃহস্পতিবার (২৮ ডিসেম্বর) স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ, স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের রাজস্ব বাজেটের অর্থে সংগৃহীত সরকারি অ্যাম্বুলেন্স বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

জাপান থেকে আনা সর্বাধুনিক এ অ্যাম্বুলেন্স দেওয়া হচ্ছে দেশের বিভিন্ন হাসপাতাল ও কমিউনিটি ক্লিনিককে। প্রথম ধাপে সাতটি দেওয়া হচ্ছে। পর্যায়ক্রমে দেশের হাসপাতাল ও কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতে ৫০০ অ্যাম্বুলেন্স দেওয়া হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘অনেকগুলো মেডিকেল কলেজ আমরা দিয়েছি। …মেডিকেল কলেজগুলো আমরা করে দিচ্ছি, কিন্তু তার মানটা বজায় রাখতে হবে যে, কী চিকিৎসা বা কী শেখানো হচ্ছে। রোগী মারার ডাক্তার হচ্ছে, নাকি রোগী বাঁচানোর ডাক্তার হচ্ছে। এটা একটু ভালো করে দেখতে হবে। পড়াশোনা, কারিকুলাম দেখতে হবে।’

এসময় হাতে-কলমে শিক্ষার ওপর গুরুত্ব দিতে বলেন শেখ হাসিনা।

ভালো মেডিকেল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাসগুলো অন্যদের সঙ্গে ভাগাভাগি করার পরামর্শ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এখন সারা বাংলাদেশে আমাদের ইন্টারনেট সার্ভিস আছে। পৃথিবীটা এখন আমাদের হাতের মুঠোয়। …ভালো মেডিকেল কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাসগুলো যেন তারা দেখতে পারে। ক্লাসগুলো দেখানোর ব্যবস্থা করা হলে অনেকে লাভবান হবে।’

বাংলাদেশে বিদেশি চিকিৎসক আনার ওপর গুরুত্বারোপ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘কিছু কিছু বিদেশি চিকিৎসককে আমাদের দেশে আসতে দেওয়া উচিত, পড়ানোর জন্য। তাদের এখানে পড়ানোর সুযোগ দেওয়া হলে এদের সঙ্গে কাজ করে আমাদের এখানকার ডাক্তাররা অনেক অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করতে পারেন। তাহলে আমাদের রোগীদের আর বিদেশে যেতে হয় না।’

দেশে গ্যাস্ট্রোয়েন্টারোলজি বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের অভাবের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের হাতেগোনা কয়েকজন গ্যাস্ট্রোয়েন্টারোলজি বিশেষজ্ঞ ডাক্তার আছেন। অথচ বাংলাদেশের বেশির ভাগ মানুষ পেটের পীড়ায় ভোগে।’

গ্যাস্ট্রোয়েন্টারোলজি বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ও বিশেষায়িত এ বিভাগকে সমৃদ্ধ করারও নির্দেশনা দেন তিনি। পাশাপাশি গ্যাস্ট্রোয়েন্টারোলজিসহ বিভিন্ন বিষয়ে

মন্তব্য
Loading...